বিজ্ঞাপন

সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় মোট ২০ হাজার ৩৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১ দশমিক ৮০। আগের দিন এ হার ছিল ২ দশমিক ২০।

গত বছর মার্চে দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত মোট ১৫ লাখ ৬৬ হাজার ৬৬৪ জনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে মারা গেছেন ২৭ হাজার ৭৯১ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ২৯ হাজার ৫৪৯ জন। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪৮১ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ছয়জনের মধ্যে চারজন পুরুষ ও দুজন নারী। চট্টগ্রামে বিভাগে মারা গেছেন তিনজন। রাজশাহীতে দুজন এবং খুলনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা, সিলেট, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও রংপুর বিভাগে কারও মৃত্যু হয়নি।
ঢাকাসহ পাঁচ বিভাগে মৃত্যু না হওয়ার বিষয়টিকে দেশে করোনার নিম্ন সংক্রমণের একটি দৃষ্টান্ত হিসেবে দেখছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের উপদেষ্টা ডা. মুশতাক হোসেন। তিনি আজ প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন ধরে এ ধারা অব্যাহত থাকলে ধরে নিতে হবে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনা সংক্রমণ দেখা দেয়। কয়েক মাসের মধ্যে এ ভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশে প্রথম করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ।

এরপর বিভিন্ন সময় সংক্রমণ কমবেশি হয়েছে। তবে চলতি বছরের মে মাসের শেষ দিকে দেশে করোনার ডেলটা ধরনের দাপটে পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকে। আগস্টের প্রথম দিকে দেশে করোনার গণটিকা দেওয়া শুরু হয়। এরপর সংক্রমণ ও মৃত্যু কমতে শুরু করে।