সকালে বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খান পুত্র আরিয়ান খানের সঙ্গে দেখা করতে মুম্বাইয়ের আর্থার রোড জেলে গিয়েছিলেন। এরপরই তাঁর মুম্বাইয়ে বাসভবন মান্নাতে তল্লাশি শুরু করে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি); এমন খবর প্রকাশ করে ভারতের শীর্ষ গণমাধ্যমগুলো।

তবে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি) জানিয়েছে কোন রকম তল্লাশি করা হয়নি মান্নাতে। এনসিবির আঞ্চালিক পরিচালক সমীর ওয়াংখেড়ে জানিয়েছেন, কোনও রকম তল্লাশি চালানো হয়নি শাহরুখের বাড়িতে; আরিয়ান মামলা সংক্রান্ত কিছু কাগজের জন্য তাঁরা হাজির হয়েছিলেন।

এদিকে একই সময়ে বলিউড অভিনেত্রী অনন্যা পাণ্ডের বাসায়ও দেখা গেয়েছিল এনসিবির অন্য একটি দলকে। তাঁকে মাদক-কাণ্ডে তলব করেছে এনসিবি। বর্তমানে তিনি এনসিবি কার্যালয়ে অবস্থান করছেন।

উঠতি এক বলিউড অভিনেত্রীর সঙ্গে আরিয়ান খান মাদক নিয়ে আলোচনা করেছেন; গতকাল আদালতে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি) এমন একটি প্রমাণ জমা দিয়েছে।

গতকালও মাদক মামলায় আরিয়ান খানের জামিন আবেদন খারিজ করেন মুম্বাই সেশন কোর্ট। এরই মধ্যে জামিন আবেদনের জন্য মুম্বাইয়ের হাইকোর্টে আপিল করেছেন। জানা গেছে, আগামী সপ্তাহে ২৬ অক্টোবর আরিয়ানের জামিনের শুনানি হওয়ার দিন নির্ধারিত হয়েছে।

মাদককাণ্ডে দীর্ঘ ১৬ ঘণ্টা জেরার পর ৩ অক্টোবর বিকেলে আরিয়ান খানকে গ্রেপ্তার দেখায় এনসিবি। আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি এনডিপিএসের ৮সি, ২০বি, ২৭, ২৯ ও ৩৫ ধারায় মামলা করা হয়েছে। ২৩ বছর বয়সী আরিয়ান খানের পক্ষে আইনি লড়াই চালাচ্ছেন মুম্বাইয়ের অন্যতম শীর্ষ আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডে ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অমিত দেশাই।

মুম্বাইয়ের উপকূলে একটি প্রমোদতরীতে চলমান মাদক পার্টি থেকে ২ অক্টোবর রাতে আরিয়ান খানসহ মোট আট জনকে আটক করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। যাত্রীর ছদ্মবেশে কর্ডেলিয়া নামে বিলাসবহুল ওই প্রমোদতরীতে চেপে বসেছিলেন এনসিবির গোয়েন্দারা।